তোওবা ও ইস্তিগফারের জন্য দুয়া কখন, কিভাবে পড়তে হয়?

(১) তোওবা ও ইস্তিগফারের জন্য সবচাইতে ছোট দুয়াঃ প্রতিদিন অন্তত ৭০ বা ১০০ বার   রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আ’লাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন, “আল্লাহর কসম! নিশ্চয় আমি দৈনিক সত্তর বারের চাইতে বেশি আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাই এবং তাওবা করি।” সহীহ Read More…

সাইয়্যিদুল ইস্তিগফারঃ ক্ষমা প্রার্থনার জন্যে শ্রেষ্ঠ দুয়া

“সাইয়্যিদুল ইস্তিগফার” বা ক্ষমা প্রার্থনা করার জন্য শ্রেষ্ঠ দুয়া, এই নামে একটা দুয়া আছে। এই দুয়াটার প্রতিটা কথা আন্তরিক বিশ্বাসের যদি কেউ যদি সকালবেলা (ফযরের পরে) ও সন্ধ্যা বেলায় (আসরের পরে) এই দুয়া পড়ে, আর আল্লাহ আমাকে ক্ষRead More…

2nd New Post

মানুষ ইলমের জন্য আলেমের মুখাপেক্ষী কিন্তু তাকলীদ গ্রহণযোগ্য নয়

মহান আল্লাহর বাণীঃ فَسۡـَٔلُوۡۤا اَہۡلَ الذِّکۡرِ اِنۡ کُنۡتُمۡ لَا تَعۡلَمُوۡنَ অর্থঃ তোমরা যদি না জান তবে (আসমানী) কিতাবের জ্ঞান যাদের আছে তাদেরকে জিজ্ঞেস কর। সুরা আল-আম্বিয়াঃ শায়খ আব্দুর রহমান নাসির আস-সাদী রহি’মাহুল্লাহ এই আয়াতের তাফসীরRead More…

আহলে হাদীষ কি নতুন কোন নাম?

(১) মহান আল্লাহর বাণীঃ یَوۡمَ نَدۡعُوۡا کُلَّ اُنَاسٍۭ بِاِمَامِہِمۡ ۚ অর্থঃ (স্মরণ কর), যখন আমি প্রত্যেক সম্প্রদায়কে তাদের ইমাম (নেতা) সহ আহবান করব। সুরা বনী ইসরাঈলঃ ৭১। তাফসীরঃ আলী রাদিয়াল্লাহু আ’নহু ও মুজাহিদ রহি’মাহুল্লাহ থেকে এখানে “ইRead More…

ড. আ’ব্দুল্লাহ জাহাংগীর রহি’মাহুল্লাহ (পর্ব-১)

এক ভাই আমাকে ড. আ’ব্দুল্লাহ জাহাংগীর রহি’মাহুল্লাহর ব্যাপারে প্রশ্ন করেছিলেন, “তিনি কেমন ব্যাক্তি।” উত্তরে আমি বলেছিলাম, “তিনি উঁচু মানের একজন দ্বাইয়ী। তবে তার সব কথা সঠিক নয়।” উল্লেখ্য, তিনি উঁচু মানের একজন দ্বাইয়ী – এটা আমাRead More…

কোন কিছু ভুলে গেলে কি দুয়া পড়তে হবে?

আল্লাহ তাআ’লা বলেন, “যখন তুমি কোন কিছু ভুলে যাও, তখন তুমি আল্লাহকে স্মরণ কর।” সুরা আল-কাহফঃ ২৪। শায়খ নাসির উদ্দিন আলবানী রহি’মাহিল্লাহ বলেন, “সুতরাং কোন কিছু ভুলে গেলে আল্লাহর যিকির করা উচিত। আর সর্বশ্রেষ্ঠ যিকির হচ্ছে “লা- ইলাRead More…

উম্মাতের জন্য প্রকৃত ফকীহর বিকল্প নেই

নামধারী, সনদধারী, তোতাপাখির ন্যায় আয়াত ও হাদীস মুখস্থকারী লোকের সংখ্যা আজকাল কম নয়। কিন্তু উম্মতের জন্যে সঠিক পথের নির্দেশনা দানকারী হলেন একমাত্র তাঁরাই, যারা ‘তাফাক্কুহ ফিদ-দ্বীন’ এর অধিকারী। কেউ কিছু ইলম (জ্ঞান) অর্জন করলেই, Read More…

মানব জন্মের সূচনা

(১) আল্লাহ তাআ’লা বলেন, “নিশ্চয় আমি মানুষকে সৃষ্টি করেছি ‘নুতফাহ’ (পুরুষ ও নারীদের মিলিত শুক্রবিন্দু) থেকে।” সুরা আদ-দাহারঃ ২। (২) আল্লাহ তাআ’লা বলেন, “(হে মানুষেরা!) তোমরা কি ভেবে দেখেছ, তোমাদের বীর্যপাত সম্বন্ধে? ওটা কি তোমরা সৃষRead More…

রুয়াইবিদা কারা?

বর্তমান যুগে বাংলা বা ইংরেজী ভাষাভাষী অনেকেই রয়েছে, যারা দ্বীনের ব্যপারে কথা বলছে। মিষ্টি ভাষায় দীর্ঘ আর্টিকেল লিখে কিংবা হৃদয় গলানো ভিডিও প্রচার করে উম্মতকে ‘দ্বীন শিখানোর’ জন্য তারা দিন-রাত যুদ্ধ-জিহাদ করে যাচ্ছে। কিন্তু, দRead More…

হাদীসে বর্ণিত ‘বিজয়ী দল’ ও ‘জামআহ’ বলতে কি বুঝায়?

নবী সাল্লাল্লাহু আ’লাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, “আমার উম্মতের মধ্যে একটি দল সর্বদাই হক্কের উপর বিজয়ী থাকবে।” সহীহ বুখারী। ইমাম বুখারী রহি’মাহুল্লাহ (মৃত্যু ২৫৬ হিজরী), তিনি এই হাদীসে “বিজয়ী দল” কারা সে সম্পর্কে বলেছেন, “তারা হচ্Read More…